29 C
Bangladesh
Saturday, September 30, 2023
spot_img

বিএনপি-জামায়াতের দুঃশাসন ও সহিংসতার চিত্র তুলে ধরে মিছিল-সমাবেশ

বাংলা স্টার অনলাইন ডেস্ক-বিএনপি-জামায়াতের দুঃশাসনের চিত্র, ২০১৪ সালের নির্বাচনের আগে ও পরে তাদের ভয়াবহ সহিংসতার চিত্র তুলে ধরে এক ব্যতিক্রমী মিছিল ও সমাবেশ করলেন ছাত্রলীগের সদ্য সাবেক সহ-সভাপতি তিলোত্তমা সিকদার। ‘রুখে দাঁড়াও ছাত্রসমাজ’ ব্যানারে আজ দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় এ প্রতিবাদী মিছিল করেন তিনি। এতে পাঁচ শতাধিক নারী নেত্রী এই মিছিলে অংশ নেন।  

প্রত্যেকের হাতে ছিল বিএনপি-জামায়াত আমলে আওয়ামী লীগ নেতাদের নির্যাতনের চিত্র, ধর্ষিত নারীর স্বজনের আহজারি, আওয়ামী লীগের অফিসে কাটাতারের বেড়া, হত্যাকাণ্ডের শিকার শত শত নেতার রক্তমাখা ছবি, ২০১৩ সালে নির্বাচন ঠেকানোর নামে টানা অবরোধে আগুন সন্ত্রাস, নিরীহ মানুষকে পুড়িয়ে মারা, অগ্নিদগ্ধ মানুষের ছবি, গাড়ীতে আগুনের চিত্র, প্রোট্রেল বোমা নিক্ষেপের চিত্র, পুলিশকে পিটিয়ে মারা, নারীর উপর আক্রমণ, ওই সময়ে বিভিন্ন পত্রিকায় ছাপা হওয়া বিএনপি-জামায়াতের নৈরাজ্যকর পরিস্থিতির চিত্র। 
গতকাল গণভবন থেকে বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ভাচুয়ালি সংযুক্ত হয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দলীয় নেতাকর্মীদের বিএনপি-জামায়াতের দুঃশাসন ও ২০১৩-২০১৪ সালের সহিংসতার চিত্র তুলে ধরার নিদের্শ দেন। আজ ছাত্রলীগের সদ্য সাবেক সহ-সভাপতি তিলোত্তমা সিকদার দুই প্রায় দুই শতাধিক নানা চিত্রকর্ম প্লাকার্ড বানিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় এলাকা প্রদর্শন করেন। 

সরেজমিনে দেখা যায় আজ শুক্রবার মিছিলটি হাইকোর্টের মোড় থেকে শুরু হয়ে দোয়েল চত্বর, ঢাকা মেডিকেল, শহীদ মিনার হয়ে রাজু ভাস্কর্য এসে এক প্রতিবাদী সমাবেশ করে। এরপর মিছিলটি মধুর ক্যান্টিনে অবস্থান নেয়।

এছাড়া ঢাবি ক্যাম্পাসের কার্জন হল, দোয়েল চত্বর, টিএসসি, পলাশী মোড়, শহীদ মিনার প্রাঙ্গণ, ঢাকা মেডিকেল কলেজ এলাকা ও নীলক্ষেত পয়েন্টসহ কয়েকটি স্থানে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা অবস্থান নিয়েছেন। 

প্রতিবাদী মিছিল ও অবস্থানের বিষয়ে ছাত্রলীগের সাবেক সহ সভাপতি তিলোত্তমা সিকদার বলেন, বিএনপি ১০ ডিসেম্বরের সমাবেশের কথা বলে গত কয়েক দিন যাবত বিএনপি নয়াপল্টনে যে বোমা সন্ত্রাস ও পুলিশের ওপর হামলা করেছে। তাতে দেশের সাধারন মানুষ ও শিক্ষার্থীরা আতঙ্কিত হয়ে পরেছে। এদিকে ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা ঢাবি ক্যাম্পাসে এসে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরি করতে পারে। অতীতেও আমরা তাদের এ ধরনের কর্মকাণ্ড দেখেছি। তাই সাধারণ শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ও বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি এড়াতে ছাত্রলীগ প্রস্তুত আছে। এটা জানান দিতেই আমাদের এ প্রতিবাদী সমাবেশ।

তিনি বলেন, সারা দেশে বিভাগ গুলোতে তো বিএনপি সমাবেশ করেছে কেউ তো তাদের বাধা দেয়নি। তাহলে কেন হঠাৎ করে ঢাকার সমাবেশকে কেন্দ্র করে তাদের এমন তাণ্ডব? কারণ এটাই তাদের চরিত্র। আগুন নিয়ে খেলা করা। কিন্তু তাদের এ সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড সাধারণ জনগন আর কখনোই সহ্য করবে না। তিনি আরো বলেন, সাধারণ মানুষ ও শিক্ষার্থীদের অভয় ও বিএনপি জামায়াতের পূর্বের সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড তুলে ধরতেই আমাদের এ কর্মসূচি। একই সঙ্গে দেশবাসীকেও মনে করিয়ে দিতে চাই তারা ক্ষমতায় থাকতে কী করেছিল, এবার ক্ষমতায় আসার জন্য কী করেছিল। 

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে নিয়মিত ক্লাস, পরীক্ষা ও ক্যাম্পাসের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে আমাদের এ কর্মসূচি সামনের দিনেও অব্যাহত রাখবো বলেও জানান ছাত্রলীগের এ নেত্রী।

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Stay Connected

0FansLike
3,875FollowersFollow
21,200SubscribersSubscribe
- Advertisement -spot_img

Latest Articles